কৃষিবিদ দিবস ২০২১ এ বিশেষ অতিথি মাননীয় মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু

বর্ণাঢ্য র‍্যালি, আলোচনাসভা, সম্মাননা প্রদানসহ বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে আজ বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ চত্বরে কৃষিবিদ দিবস পালিত হয়।

বেলা ১১টায় র‍্যালি পরবর্তীতে জয়নুল আবেদীন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের কৃষি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি, বগুড়া-১ আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান এবং ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু।

মাননীয় কৃষিমন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু সব সময় কৃষক শ্রমিকের অর্থনৈতিক মুক্তির কথা ভেবেছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণে অবদান রেখেছেন কৃষিবিদগণ। তিনি আরো বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষিবিদদের মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। যা নিয়ে কৃষিবিদরা গর্বিত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ সব সুচকে আমরা ভালো করছি। উন্নয়নের সকল ক্ষেত্রে বাংলাদেশ আজ বড় মডেল। তিনি আরো বলেন, অনুপ্রাণিত কৃষিবিদরা আগামীদিনে পুষ্টি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি তাঁর বক্তব্যে জাতীয় উন্নয়নে কৃষিবিদদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার প্রশংংসা করেন এবং দিবসের সফলতা কামনা করেন।

বগুড়া ০১ আসনের মাননীয় এমপি সাহাদারা খাতুন বলেন, করোনা মহামারী আমাদের কৃষি ও কৃষিবিদের গুরুত্ব বুঝিয়েছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু বলেন, আজ আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে চলার সুযোগ পেয়েছি জাতির পিতার কল্যাণে। জাতির পিতার কমিটমেন্ট ছিল ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ। তিনি কৃষি খাতের উন্নয়নের সাথে সাথে কৃষিতে বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করছেন। যার সুফল আজ আমরা পাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, একসময় এ দেশ ছিল আমদানি নির্ভর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় আজ আমরা নিজেদের খ্যাদ্য চাহিদা মিটিয়ে আজ আমরা খাদ্য রপ্তানি করছি।

অনুষ্ঠানের সভাপতি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান সকল ভেদাভেদ ভুলে সকল কৃষিবিদদের এক প্লাটফর্মে কাজ করার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে ২০১৭ ও ২০১৯ সালে স্বাধীনতা পদক এবং ২০২০ সালে একুশে পদক প্রাপ্তিতে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ন ম নাজমুল আহসান (মরণোত্তর), কৃষিবিদ প্রফেসর ড. শামসুল আলম, সদস্য (সিনিয়র সচিব), সাধারণ অর্থনীতি বিভাগ, পরিকল্পনা কমিশন, প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর আলম খান, উপাচার্য, ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ, বরিশাল, বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউট এবং বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা, নির্বাহী সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালমোনাই আসোসিয়েশন, কৃষিবিদ মো ইয়াসিন আলী, ভিপি, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ, কৃষিবিদ আবুল ফয়েজ কুতুবী, প্রথম সভাপতি, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ, কৃষিবিদ নজিবুর রহমান, সাবেক ভিপি, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ, কৃষি প্রকৌশলী মোঃ রহমত উল্লাহ, সাবেক ভিপি, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ।

আরো বক্তব্য রাখেন কৃষিবিদ মো মেজবাহুল ইসলাম, সিনিয়র সচিব, কৃষি মন্ত্রণালয়, কৃষিবিদ ড. মোছাম্মাৎ নাজমানারা খানুম, সচিব, খাদ্য মন্ত্রণালয়, রওনক মাহমুদ, সচিব, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয় প্রমুুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষিবিদ মোঃ সাইফুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর ড. এ কে এম জাকির হোসেন, ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *